অনবরত জিজ্ঞাসিত প্রশ্ন



১) বয়ঃসন্ধিকাল কি?

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সংজ্ঞা অনুযায়ী জীবনের ১০-১৯ বৎসর সময়টাই হলো কৈশোর বা বয়ঃসন্ধিকাল। শৈশব ও যৌবনের এই সন্ধিক্ষণে ছেলেমেয়েদের শারিরীক ও মানসিক পরিবর্তন হয় ও তারা প্রজননক্ষম হয়।

২) বয়ঃসন্ধিকালে মানসিক পরিবর্তনগুলো কি কি?

বয়ঃসন্ধিকালে মানসিক পরিবর্তনগুলো হলো-
– মানসিক ভাবে অস্থির থাকে এবং যে কোন ঝুঁকি নিতে প্রস্তত্ত থাকে;
– ছেলেমেয়েরা নিজেকে প্রাপ্তবয়ষ্ক ভাবতে শুরু করে এবং অন্যদের কাছ থেকে সে অনুযায়ী আচরন আশা করে;
– কৌতুহল বাড়ে ও যৌনতা সম্পর্কে আগ্রহ বাড়ে;
– স্বাধীন ভাবে চলাফেরা করতে চায়;
– আর্থিক ভাবে স্ব-নির্ভর হতে চায়;
– নিজেকে আকর্ষনীয় করে তুলতে চায়;
– বন্ধু-বান্ধবের সঙ্গ ভালবাসে ও তাদের উপর নির্ভর করে;
– আত্মসচেতনতা বৃদ্ধি পায় ও আত্মকেন্দ্রিক হয়;
– লজ্জা ভাব বেড়ে যায়;
– নিজের সম্পর্কে অন্যদের প্রতিক্রিয়া নিয়ে ভাবনা শুরু হয়;

৩) মাসিক কি? এই সময় করণীয় কি?

মেয়েদের প্রতিমাসে যোনিপথ দিয়ে যে রক্তস্রাব হয় তাকে ঋতুস্রাব বা মাসিক বলে। ঋতুস্রাব সাধারণত ১০ থেকে ১৪ বৎসের বয়সের মধ্যে শুরু হয় এবং ৪৫-৫০ বৎসর পর্যন্ত প্রতিমাসে একবার হতে থাকে। প্রতিমাসেই ৩ থেকে ৭ দিন পর্যন্ত রক্তস্রাব হয়ে থাকে। প্রথম ২/৩ দিন একটু বেশী এবং পরবর্তীতে দিনগুলিতে কম রক্তস্রাব হয়ে থাকে।

বয়ঃসন্ধিকালে মাসিক খুব স্বাভাবিক একটি ব্যাপার। সুতরাং এটা নিয়ে ভয় ও সংকোচের কোনো কারন নেই।

মাসিকের সময় রক্ত যেন কাপড়ে লেগে না যায় সেজন্য স্যানিটারী ন্যাপকিন (যদি কেনা না যায় তবে পরিষ্কার পাতলা কাপড় ভাঁজ করে) ব্যবহার করতে হবে। রক্তস্রাবের পরিমান অনুযায়ী স্যানিটারী ন্যাপকিন বা কাপড় দিনে অন্ততঃপক্ষে ২ থেকে ৬ বার বদলাতে হবে এবং যথাস্থানে ফেলতে হবে। কাপড় ব্যবহার করলে রৌদ্রে শুকিয়ে পরবর্তীতে ব্যবহারের জন্য পরিষ্কার স্থানে সংরক্ষণ করতে হবে। এ সময় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকতে হবে এবং নিয়মিত গোসল করতে হবে। প্রতিদিনের নিয়মিত কাজকর্ম করতে হবে, যেমন স্কুলে যাওয়া, গৃহস্থলী কাজ ইত্যাদি এবং পুষ্টিকর ও সুষম খাদ্য গ্রহণ করতে হবে।